পিএইচপির ৫টি চমকপ্রদ তথ্য

১. পিএইচপির বর্তমান ভার্সন হল ৫.৬ আর এ বছরের শেষের দিকে আসছে পিএইচপি ৭ ভার্সন। এ ভার্সনের প্রধান দুটি ফিচার হল

ইউনিকোড সাপোর্ট: পিএইচপির নতুন ভার্সনে বাংলাতেও ভেরিয়েবল ফাংশন ইত্যাদি লেখা যাবে। অর্থ্যাৎ পিএইচপি এখন ইউনিকোড সাপোর্টেড হতে যাচ্ছে।

দ্রুততা: আগের থেকে পিএইচপির এই ভার্সনের পারফরমেন্স প্রায় ২ গুন হয়ে যাবে। ফেসবুকের হিপহপ কমপাইলারের মত প্রযুক্তি থাকছে এখানে। একটা কনফারেন্সে পিএইচপির মুল ৩ জন নির্মাতার মধ্যে ১জন বলেছেন “ফেসবুকের হিপহপ আমাদের প্রযুক্তিটির competitor হবে

 

২. পৃথিবীর সর্বোচ্চ উদ্ভাবনী ক্ষমতাসম্পন্ন ব্যাক্তিদের মধ্যে ২ জন পিএইচপির নির্মাতা, অ্যান্ডি গাটম্যান এবং রাসমাস লার্ডফ (MIT রিপোর্ট অনুযায়ী)। তবে মজার ব্যাপার হল এদের একজনের লেখা পিএইচপির একটি বই আছে (নাম power php programming) তবে সেটা বেশি চলেনা।

 

৩. পিএইচপি দিয়েও ডেস্কটপ এপ্লিকেশন বানানো যায়। অন্যান্য ওয়েব ল্যাংগুয়েজের মত পিএইচপিরও একটা ল্যাংগুয়েজ bindings আছে GIMP toolkit এর জন্য।gtk.php.net এ আরও বিস্তারিত আছে।

 

৪. বর্তমানে পৃথিবীতে প্রায় ৪০ ভাগ ওয়েবসাইট, ওয়েব এপ্লিকেশন পিএইচপি দিয়ে বানানো, অন্যান্য সব ল্যাংগুয়েজ মিলে বাকি অংশ। পৃথিবীর বিখ্যাত যেসব কোম্পানী পিএইচপি ব্যবহার করে তাদের মধ্যে আছে yahoo (yahoo bookmark, yahoo answers, feedback এসব পিএইচপি দিয়ে বানানো), magento (পৃথিবীতে যেসব এন্টারপ্রাইজ লেভেলের ইকমার্স সাইট দেখতেছেন এগুলির বেশির ভাগ ম্যাজেন্টো দিয়ে বানানো, ম্যাজেন্টো CMS টা আবার জেন্ড ফ্রেমওয়ার্ক দিয়ে বানানো), wikipedia, facebook, wordpress ইত্যাদি।

 

৫. আউটসোর্সিং সাইট যেমন ওডেস্ক (এখন নাম হয়েছে আপওয়ার্ক), ফ্রিল্যান্সার ইত্যাদিতে প্রায় ৫০০ ধরনের কাজ পাওয়া যায়। এর মধ্যে ৭০% ভাগেরও বেশি পিএইচপির কাজ।