নার্সারি ব্যবসা

নার্সারির জন্য যন্ত্রপাতি

বীজতলা তৈরি, চারা উৎপাদন, চারার যত্ন ও পরিচর্যা, চারা তোলা, কলম তৈরি প্রভৃতি সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য বিভিন্ন ধরনের যন্ত্রপাতি প্রয়োজন। যেমন কোদাল, নিড়ানি, চালনি, নলকূপ, ভ্যান, শাবল, কাঁচি, পাইপ, ছুরি বা দা, ঝুড়ি, বদনা, বাঁশ প্রভৃতি।

নার্সারির জন্য কাঁচামাল

বীজ, সার, কীটনাশক, গোবর, পলিথিন প্রভৃতি।
নার্সারির জন্য চারা রোপণের পাত্র
গাছভেদে ছোট থেকে বেশ বড় আকারের পাত্র ব্যবহৃত হয়। ট্রে, সিডপ্যান, পট, প্লাস্টিক পট ও ব্যাগ, বালতি, পলিব্যাগ, ড্রাম, হাফ ড্রাম, মাটির বল, টিনের কৌটা প্রভৃতি ব্যবহার করা হয়।

নার্সারির জন্য নিবন্ধন

বাণিজ্যিকভাবে নার্সারি ব্যবসা করার জন্য প্রথমেই দরকার নিবন্ধন। ২০১০ সালের নার্সারি আইনের আলোকে যে জমিতে নার্সারি করবেন সেই জমির কাগজপত্র অর্থাৎ নিজের হলে দলিল, ইজারা হলে তার পক্ষে কাগজপত্র, ভাড়া হলে সে-সংক্রান্ত চুক্তিনামার ফটোকপিসহ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের নির্ধারিত ফরমে আবেদন করতে হবে। সঙ্গে যুক্ত করতে হবে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অনুকূলে ৫০০ টাকার ট্রেজারি চালান। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে যাঁরা রেজিস্ট্রেশন করতে চান, তাঁদের উপজেলা বা জেলা কৃষি কর্মকর্তার মাধ্যমে আবেদন করতে হবে।

নার্সারির জন্য প্রশিক্ষণ

নার্সারি করার ক্ষেত্রে অভিজ্ঞ কারও কাছ থেকে নার্সারি ব্যবসার খুঁটিনাটি সম্পর্কে জেনে নিতে পারেন। এছাড়া স্থানীয় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের ইউনিয়ন পর্যায়ে কৃষি কর্মকর্তা কিংবা উপজেলা কৃষি অফিসে যোগাযোগ করা যেতে পারে। সারা বছরই কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি), বাংলাদেশ বন গবেষণা ইন্সটিটিউট (বিএফআরআই), ঢাকা হর্টিকালচার সেন্টার, ময়মনসিংহের বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় সারা বছর গ্রাফটিং, কাটিং, লেয়ারিং, ফলগাছ ব্যবস্থাপনাসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণের আয়োজন করে। যে কেউ চাইলেই তিন দিন, সাত দিন, ২১ দিন, এক মাস বা তিন মাস মেয়াদি এসব প্রশিক্ষণ নিয়ে শুরু করতে পারেন নার্সারি তৈরির কাজ। এ ছাড়া সুইস ডেভেলপমেন্ট করপোরেশনের আর্থিক সহযোগিতায় সম্মিলিত কৃষি বনায়ন উন্নয়ন কার্যক্রম (এএফআইপি) নামে একটি প্রকল্প দীর্ঘদিন ধরে নার্সারি উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। চারা উৎপাদন, বিপণন, সংরক্ষণের বিষয়ে দরকারি সহযোগিতা দেয় তারা। এছাড়া বিভিন্ন বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা থেকে প্রশিক্ষণ নিতে পারেন। এসব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্ধারিত ফি’র বিনিময়ে কিংবা বিনামূল্যে কৃষিবিষয়ক প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে।